পঞ্চগড়ে বজ্রপাত নিহত ১ সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ২

মোঃ বাবুল হোসেন, পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধি : পঞ্চগড়ে বজ্রপাতে আশরাফুল ইসলাম (৩৫) নামের এক কৃষি শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছেন আরও দুই কৃষি শ্রমিক। রোববার সকাল ৮টার দিকে পঞ্চগড় সদর উপজেলার কামাত-কাজলদিঘী ইউনিয়নের ফকিরপাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। নিহত আশরাফুল ইসলাম ওই ইউনিয়নের গোয়ালপাড়া এলাকার আবুল হোসেন ওরফে বিশারুর ছেলে। আহত অপর দুজন হলেন ওই এলাকার জামাল উদ্দিনের ছেলে আরিফুজ্জামান (২৮) ও ময়জদ্দীনের ছেলে মোবারক হোসেন (৩৬)। স্থানীয় লোকজনের বরাত দিয়ে কামাত-কাজলদিঘী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোজাহার হোসেন বলেন, রোববার সকালে আশরাফুল ইসলাম সহ সাত/আটজন শ্রমিক ফকিরপাড়া এলাকায় স্থানীয় এক কৃষকের ধান কাটতে যান।

এ সময় হঠাৎ আকাশ মেঘাচ্ছন্ন হলে ভাঁড়ে করে ধানের আঁটি নিয়ে ওই কৃষকেরা বাড়িতে ফিরছিলেন। ফেরার পথে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির সঙ্গে বজ্রপাত হলে ওই তিন শ্রমিক গুরুতর আহত হন। পরে অন্যান্য শ্রমিকদের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এসে গুরুতর আহত তিন শ্রমিককে উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক আশরাফুল ইসলামকে মৃত ঘোষণা করেন। আহতদের মধ্যে মোবারক হোসেন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। অপরদিকে আরিফুজ্জামান প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়িতে ফিরেছেন।

অপরদিকে রোববার (২ জুন) সন্ধ্যায় উপজেলার লক্ষ্মীরহাট চৌরাস্তা বাজারে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তন্ময় লক্ষ্মীরহাট এলাকার কাটুহাড়ি বেভুলপাড়া গ্রামের রতন রায়ের ছেলে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, তন্ময় তার মাকে নিয়ে বাড়ি থেকে মোটরসাইকেলে করে লক্ষ্মীরহাট বাজারে যাচ্ছিল। পথে ওই বাজারে চৌরাস্তা এলাকায় পৌঁছালে একটি ট্রাক তাদের মোটরসাইকেলটিকে চাপা দেয়। এতে গুরুতর আহত হন মা ও ছেলে। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে দেবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে তন্ময়কে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালে নেওয়া পরামর্শ দেন চিকিৎসক। পরে তন্ময়কে রমেক হাসপাতালে নেওয়া পথে তার মৃত্যু হয়। দেবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রবিউল হাসান সরকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।


মৃত্যু