চাঁদপুর জেলার ৭টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রত্যাহারের শেষ দিন পর্যন্ত ২২ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার

চাঁদপুর প্রতিনিধি.
৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তৃতীয় পর্যায়ে চাঁদপুর জেলার ৭টি উপজেলার নির্বাচনে গতকাল বৃহস্পতিবার প্রত্যাহারের শেষ দিন বিকেল ৫টা পর্যন্ত ১০ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী, ১০ জন পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ও ২ জন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সহ মোট ২২ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছে। সকাল থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত রিটার্নিং অফিসার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ শওকত ওসমান এবং সহকারি রিটার্নিং অফিসার, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ হেলাল উদ্দিনের কাছে এসব প্রার্থীরা তাদের প্রত্যাহারের আবেদন জমা দেন।

চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ৪ জন চেয়ারম্যান, ৪ জন পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান ও ৩ জন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে ১ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী, ১ পুরুষ ও ১ জন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেছেন। বিএনপিমনা চেয়ারম্যান প্রার্থী কাজী মোঃ ইব্রাহিম জুয়েল গতকাল বিকেল সাড়ে ৪টায় রিটানিং অফিসার শওকত ওসমানের কাছে তার মনোনয়ন প্রত্যাহারের আবেদনটি জমা দিয়েছেন।

এর কিছু সময় পূর্বে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ হারুনুর রশিদ হাওলাদার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের আবেদন জমা দেন। এর পূর্বের দিন বিকেল ৫টায় মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী আয়েশা রহমান তার প্রার্থীতা প্রত্যাহারের আবেদন জমা দিয়েছেন। বর্তমানে চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামীলীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান একই দলের স্বতন্ত্র প্রার্থী মিজানুর রহমান ভূইয়া কালু ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী অ্যাড. মহসিন খান চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনী মাঠে রয়েছেন। পুুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন মোঃ আইয়ুব আলী বেপারী, জাকের পার্টির প্রার্থী মোঃ নুরুল ইসলাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী আবিদা সুলতানা ও শিপ্রা দাস।

ফরিদগঞ্জ উপজেলায় পরিষদ নির্বাচনে ৫ জন চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করার লক্ষ্যে মাঠে নেমেছিলেন। প্রত্যাহারের শেষ দিন জেলা রিটানিং অফিসারের কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে ২ জন প্রার্থী তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহারের আবেদন জমা দিয়েছেন। এরা হলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আবু সাহেদ সরকার গতকাল বেলা ২টা ৫০ মিনিটে ও অপর চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ সফিকুর রহমান বিেেকল ৩টা ৫৫ মিনিটে জেলা রিটার্নিং অফিসার শওকত ওসমানের কাছে প্রার্থীতা প্রত্যাহারের আবেদন জমা দিয়েছেন।

১ জন মাত্র ভাইস চেয়ারম্যানপ্রার্থী মোঃ এমরান হোসেন বিকেল ৪টায় প্রার্থীতা প্রত্যাহারের আবেদন জমা দিয়েছেন। বর্তমানে এই উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করছেন আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী জাহিদুল ইসলাম রোমান, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ তোফায়েল আহমেদ ভূইয়া, আব্দুল গণি। পুুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন আবু সুফিয়ান, ওয়াহেদুর রহমান, তছলিম আহমেদ, এনামুল হক পাটওয়ারী, কামরুজ্জামান পাটওয়ারী, পাভেল হোসেন পাটওয়ারীর মনোনয়নপত্র বৈধ হয়েছে। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মোসাঃ সেলিনা আক্তার, মাজুদা বেগম, রিনা নাসরিন, হালিমা বেগম, রেবেকা সুলতানা, রেহেনা বেগম।

মতলব উত্তর উপজেলায় পরিষদ নির্বাচনে ২ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্য থেকে জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী মোঃ সোহরাব হোসেন মিয়াজী মনোনয়নপত্র যাচাইবাচাইকালে তার আইনজীবীর মাধ্যমে প্রার্থীতা প্রত্যাহারের আবেদন জমা দিয়েছিলেন। সেই হিসেবে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী এম.এ কুদ্দুছ এখন বিজয়ের পথে।এছাড়া গতকাল প্রত্যাহারের শেষ দিন মোঃ গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী তার প্রার্থীতা প্রত্যাহারের আবেদন জমা দিয়েছেন। এই উপজেলায় এককভাবে বিজয়ী হওয়ার পথে। ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোঃ আলাউদ্দিন, ও মোঃ সেলিম মিয়া সহ অপর প্রার্থীরা মাঠ পর্যায়ে রয়েছেন।

মতলব দক্ষিন উপজেলায় পরিষদ নির্বাচনে ১ জন চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী এ.এইচ.এম গিয়াস উদ্দিন বিজয়ীর পথে এগিয়ে যাচ্ছেন। গতকাল প্রত্যাহারের শেষ দিন ২ জন পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান ও ১ জন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহর করেছেন। এরা হলেন পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে এম.এ আজিজ বাবুল ও মেহেদী হাসান। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ফাতেমা আক্তার প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেছেন।

হাজীগঞ্জ উপজেলায় পরিষদ নির্বাচনে ১ জন চেয়ারম্যান ও ৩ জন পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেছেন বলে সহকারি রিটানিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা হেলাল উদ্দিন জানিয়েছেন। আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী গাজী মাইনুদ্দিন, স্বতন্ত্র প্রার্থী আমজাদ হোসেন মিরন। প্রত্যাহারের শেষ দিন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আমজাদ হোসেন মিরন তার প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেছেন। একই সাথে পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ফখরুজ্জামান, মজিবুর রহমান ও জাহাঙ্গীর হোসেন তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেছেন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী খাদিজা বকাউল, শিউলি আক্তার, মুক্তা আক্তার, মির্জা শিউলি পারভীন, ও পারভীন ইসলাম মাঠে রয়েছেন।

কচুয়া উপজেলায় পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ৩ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী ও ১ জন ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেছেন। প্রত্যাহার করা চেয়ারম্যান প্রার্থীরা হলেন হুমায়ুন কবির, আইয়ুব আলী, সোহরাব হোসেন। পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী শাহপরান তার প্রার্থীতা প্রত্যাহার করছেন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা এখনো মাঠ পর্যায়ে রয়েছেন।

শাহরাস্তি উপজেলায় পরিষদ নির্বাচনে ৫ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্য থেকে প্রত্যাহারের শেষ দিন পর্যন্ত ২ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রার্থীতা প্রত্যাহার করেছেন। এরা হলেন খিজির হায়দার ও বাবুল মিজি। প্রত্যাহার করা ১ জন ভাইস চেয়ারম্যান হলেন মোঃ সেলিম খান। বর্তমানে ৩ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী, ৫ জন ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ও ৪ জন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মাঠ পর্যায়ে রয়েছেন।


রাজনীতি